নোটিশ :
জরুরী নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিঃ সাপ্তাহিক শরীয়তউল্লহর জন্য মাদারীপুরের বিভিন্ন উপজেলা ও দৈনিক আপোষহীণ বাণীর জন্য সারাদেশে সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে। আগ্রহীরা যোগাযোগ করুনঃ ০১৭১২৫৪০২৯৯,০১৭৮২২০৬২৫৫. সিভি পাঠানঃ gausurrahman1980@gmail.com
ব্রেকিং নিউজ :
আম গাছে ঢিল ছোড়া নিয়ে দ্বন্দ্বে যুবককে কুপিয়ে হত্যা ফেরিঘাটে বিজিবি মোতায়েন মাদারীপুরের হাউসদীতে অসহায়দের মাঝে ঈদ উপহসর সামগ্রী বিতরণ মাদারীপুরের ২৪ যুবক লিবিয়ার বন্দী শিবিরে নির্যাতনের শিকার মাদারীপুরে কম্বাইন হারভেস্টার দিয়ে ধান কর্তনের উদ্বোধন করলেন জেলা প্রশাসক ডঃ রহিমা খাতুন মাদারীপুরে পুলিশ সুপারের সাথে আন্তঃজেলা বাস মালিকও মোটর শ্রমিক ইউনিয়ন সমিতির সভা অনুষ্ঠিত মাদারীপুরে চুরির অভিযোগে শিশুকে সরকারি অফিস রুমে বেঁধে নির্যাতন স্পিডবোট দুর্ঘটনায় নিহত ২৬জনের সবাই মাথায় আঘাত পেয়ে মারা গেছে- তদন্ত কমিটির প্রধান দাদীরে কবর দেয়ার আগেই মা-বাবা মরে গেলো আমি এহন কারকাছে থাকুম মাদারীপুরের পাঁচ খোলায় ৫৫৬ টি পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ বিতরণ
দাদীরে কবর দেয়ার আগেই মা-বাবা মরে গেলো আমি এহন কারকাছে থাকুম

দাদীরে কবর দেয়ার আগেই মা-বাবা মরে গেলো আমি এহন কারকাছে থাকুম

দাদীরে কবর দেয়ার আগেই মা-বাবা মরে গেলো আমি এহন কারকাছে থাকুম

মাদারীপুর প্রতিনিধিঃ
শিশু মীম আকুতি করে বলে দাদিরে কবর দেয়ার আগেই মা- বাবা মরে গেলো, আমি এহন কার কাছে থাকুম।

১ মে -২০২১ খ্রিঃ শনিবার দিবাগত রাতে খুলনায় মীমের দাদি মারা যায়। সেই খবর পেয়ে পরিবারের সবাই খুলনায় যাচ্ছিলেন ঢাকা থেকে। কিন্তু পদ্মা নদীতে দুর্ঘটনায় দাদির লাশ দাফনের আগে পরিবারের সবাইকে হারালো মীম। এই দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে মীমের বাবা মনির মিয়া (৩৮), মা হেনা বেগম (৩৬), বোন সুমী আক্তার (৫) ও রুমি আক্তার (৩)। বেঁচে গেছে শুধু মীম।

খুলনা জেলার তেরখাদা উপজেলার বারখালী গ্রামের মনির মিয়া ও হেনা বেগমের ৯ বছরের সন্তান মীম।
সোমবার (৩ মে) ভোররাতে মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার কাঁঠালবাড়ীর বাংলাবাজার পুরনো ঘাটে পদ্মা নদীতে বালুবোঝাই বাল্কহেডের সঙ্গে ধাক্কা লেগে স্পিডবোট ডুবে তিন শিশু ও দুই নারীসহ ২৬ জন নিহত হয়।
কাঁঠালবাড়ীর হাজী ইয়াসিন মোল্লাকান্দি দোতার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাঙ্গণে লাশ এনে রাখা হয়। সেখানে স্বজনদের আহাজারিতে বাতাস ভারি হয়ে ওঠে।

দুর্ঘটনায় স্পিডবোট দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এ সময় ছিটকে নদীর তীরে বালুর মধ্যে পড়ে মীম। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। দুপুর ৩টার দিকে তাকে নিয়ে আসা হয় বিদ্যালয়ে প্রাঙ্গণে। সেখানে রাখা ছিলো দুর্ঘটনায় নিহতদের মরদেহ। মীম বাবা, মা ও দুই বোনের মরদেহ শনাক্ত করে। তখন কান্নায় ভেঙে পড়ে মীম। মীমের কান্না দেখে অনেকে অশ্রু ধরে রাখতে পারেননি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2020 WeeklyShariatullah.Com
Design & Development: Hostitbd.Com